পাঁচ বউ মিলে ধর্ষণ, মৃত স্বামী

sex

উরোকো ওনোজো একজন মাঝবয়েসি নাইজেরিয়ান। ধনী শিল্পপতিও বটে। রাজধানী লাগোসে তাঁর অনেক বাড়ি, অফিস ও একাধিক গাড়ি। তবে বেনিউ প্রদেশে ওগবাদিবো শহরেই বেশি ছুটি কাটান ওনোজো। শুধু তাই নয়, ধনকুবের ওনোজোর একটা দুটো নয়। ছ’ ছটা বউ। প্রত্যেকেই কৃষ্ণাঙ্গ হলেও আকর্ষণীয়, স্টাইলিশ এবং সুশিক্ষিতাও বটে। তাঁদের কেউ মোটা, কেউ স্লিম, কেউবা মাঝারি দেখতে। প্রাসাদোপম বাড়িতে (পড়ুন হারেমে) আলাদা আলাদা ইউনিটে নিজস্ব চাকর বাকরদের নিয়ে থাকেন ওই ছয় স্ত্রী। ছয় জনে মিলে যাতে সবকিছু নয়ছয় করে দিতে না পারেন সে জন্য সতর্কও থাকেন ওনোজো।

কিন্তু শেষরক্ষা হল না। ওই ছয় স্ত্রী এমনিতেই একে অপরের উপর হিংস্র, হাড়ে চটা। ওনোজোর উপর কার অধিকার বেশি তা নিয়ে ওই ছ’জনের মধ্যে প্রায়ই ঝামেলা চরম আকার নেয়। তবে কামাতুর এবং যৌনক্রীড়ায় পারদর্শী ওনোজো কিন্তু ওদের মধ্যে ঝগড়া লাগিয়ে প্রায়ই ফায়দা তোলেন। এভাবেই চলছিল দিন। ইদানীং দৈত্যাকার চেহারার ওনোজো তার ছোট বউকে একটু বেশি ভালবাসছিলেন। তার সঙ্গেই বিছানায় রাত কাটাতেন বেশি। গত কয়েক মাস ধরে বাকি বউদের শারীরিক চাহিদাকে গুরুত্বই দেননি তিনি। প্রায়ই বলতেন, ছোট বউয়ের সঙ্গে সঙ্গমের তৃপ্তিই আলাদা। এসব দেখে শুনে মনে মনে বেজায় চটেছিলেন বাকি বউরা। দু দিন আগে ছোট বউয়ের সঙ্গে যখন বিছানায় ‘তৃপ্ত’ হচ্ছেন তখন হঠাৎই কলিং বেলের শব্দ। বার বার শব্দ শুনে বিরক্ত হয়ে দরজা খুলে দেখেন, ঘনিষ্ঠ এক চাকর বলছেন, ‘ম্যাডামরা আপনার সঙ্গে কথা বলতে চান।’ ম্যাডামরা মানে বাকি বউরা।

Link | This entry was posted in Uncategorized. Bookmark the permalink.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s